slideshow 1 slideshow 2 slideshow 3

মন্টু মিয়া মাল খোঁজে, হুইপ খোঁজে ক্যাশ!

মন্টু মিয়া ধোলাই খালের একজন পুরোনো লোহা ব্যবসায়ী। পুরোনো লোহার ব্যবসা করে বেশ টাকা জমিয়েছেন তিনি। তাই তার বন্ধুবান্ধব এমনকি আত্মীয়-স্বজনরাও উপদেশ-পরামর্শ দিলো শেয়ার ব্যবসা করার জন্য। তারা মন্টু মিয়াকে চোখে আঙ্গুল দিয়ে দেখানোর চেষ্টা করলো, পুরোনো লোহায় আর কয় টাকা ব্যবসা! এখন সব ব্যবসা তো ওই শেয়ার মার্কেটেই।

শুভ জন্ম দিন গণজাগরণমঞ্চ

আজ গণজাগরণ মঞ্চের ১ বছর পূর্তি। ঘটনাবহুল এই এক বছরে গণজাগরণমঞ্চ যেমন অসংখ্য ঘটনার শিকার হয়েছে তেমনি জন্মও দিয়েছে অসংখ্য ঘটনার। গণজাগরণমঞ্চের আন্দোলনের ঢেউ যেমন দেশের সীমানা ছাড়িয়ে দুনিয়াব্যাপী আলোড়ন সৃষ্টি করেছে, তেমনি দেশের জেলায় জেলায় আর বিদেশের বাঙালী অধ্যূসিত অঞ্চলেও সূচনা করেছে আন্দোলন। এই গণজাগরণমঞ্চই বাঙালী নতুন প্রজন্মকে অন্তত নাড়া দিতে পেরেছে, জাগিয়ে তুলতে পেরেছে তাদের ভিতরকার প্রতিবাদী বাঙালীত্বকে।

একটি 'নিষিদ্ধ' নজর!

শহীদ ড. শামসুজ্জোহার মহাআত্মত্যাগের গল্প রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ভুলে গেছে। পাকিস্তান রাষ্ট্রের মহাপ্রতাপশালী আইনরক্ষকদের সামনে তিনিই তো তাঁর সমুদ্রসম বুক প্রশস্ত করে বলেছিলেন- 'আমার ছাত্রদেরকে গুলি করার আগে আমাকে গুলি কর।' ১৯৬৯ সালের ১৮ ফেব্রুয়ারি রাবির তৎকালীন প্রক্টর ও রসায়ন বিভাগের শিক্ষক ড. জোহার এই অমর উচ্চারণ তাঁকেও অমর করেছে। তিনিই তো স্বাধীনতাকামী বাংলাদেশের প্রথম বুদ্ধিজীবী যাঁর বুক শিক্ষার্থীদের বাঁচাতে চাওয়ার অপরাধে ঝাঁঝরা করে দিয়েছিল আইযূব খানের জলপাই রঙ বুলেট!

সবুজ পাহাড়ে ঘেরা কান্ট্রি টাউন ডেলসফোর্ড

ব্লাক সোয়ান বা কালো রাজহাঁস দেখা তো দুরের কথা, রাজহাঁস যে কালো হয় এই ধারণাই আমার ছিলো না। কিন্তু ডেলসফোর্ড এসে লেকের জলে একজোড়া কালো রাজহাঁস দেখে খুবই মুগ্ধ হলাম। ডেলসফোর্ড পাহাড়ের উপরে অবস্থিত ছোট্ট একটি শহর। অনেকদিন এক স্থানে থাকতে থাকতে অনেকটা এক ঘেঁয়েমিতে পেয়ে বসে। তাই হঠাৎ করে লং উইকেন্ড আসায় স্বপরিবারে বেরিয়ে পড়া। এখানে সাপ্তাহিক ছুটিকে বলে উইকেন্ড। আর এই উইকেন্ডের দুই দিনের ছুটির সাথে অষ্ট্রেলিয়া ডে-এর একদিনের ছুটি জুড়ে দিয়ে সাপ্তাহিক ছুটিটা একটু লম্বা হয়েছে, তাই এটা লং উইকেন্ড।

"পথ যত হোক বন্ধুর,বন্ধু যেওনা থামি"/শফিকুল ইসলাম


[সারাবিশ্বে প্রকাশ্যে কিংবা লোকচক্ষুর অন্তরালে যারা আজ ও জনতার মুক্তি সংগ্রামকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়ার লক্ষ্যে কাজ করে চলেছেন, সেইসব অমিত আশাবাদী অসমসাহসী সংগ্রামী মানুষদের উদ্দেশ্যে নিবেদিত]

পথ যত হোক বন্ধুর ,বন্ধু যেওনা থামি
আসবেই আসবে সুন্দর আগামী।।

আধার দেখে চমকে উঠনা ত্রাসে
আধার রাতের শেষে সূর্য হাসে-
আজ মাভৈ বানী শোনাই তোমায় আমি।

ICC: International Cricket Council আর Indian Cricket Council দুটোইকি এক হবে?

বর্তমানে ক্রিকেট খুবই জনপ্রিয় খেলা। প্রায় সব দেশেই ক্রিকেট চলে। তো, এতদিন আইসিসির টপ টেন সদস্যরা বেশ সুখে শান্তিতে দিন কাটাইতেসিল। কিন্তু হঠাৎ অঘটন ঘটে গেল ভারতের দাবীর জন্য। ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান শ্রীনিবাসন যে দাবী গুলো উত্থাপন করেছেন তা অনেকটা এইরকম :

ছাত্র রাজনীতি : এই বাংলার মণিকণ্ঠহার

[গতকাল ২০ জানুয়ারি 'শহীদ আসাদ দিবস' গেল। শহীদ আসাদের (১০ জুন ১৯৪২-২০ জানুয়ারি ১৯৬৯)  প্রতি শ্রদ্ধা জানিয়ে একটি স্মৃতিচারণ ও স্মৃতিচারণ-সংশ্লিষ্ট একটি জরুরি কথা বলতে চাই।]

ছাত্র রাজনীতি : এই বাংলার মণিকণ্ঠহার

ব্যার্থ অভ্যুত্থান বিষয়ে হুগো শ্যাভেজ

সাক্ষাৎকারটি গ্রহন করেছেন মার্টা হার্নেস্কার

মার্টা হার্নেস্কারঃ আজ যেখানে বসে এই সাক্ষাৎকারটি নিচ্ছি ঠিক এই জায়গায়টিতেই আপনি ১১এপ্রিলের অভ্যুথান চলাকালীন সময়ে আটক ছিলেন, ঐ কঠিন সময়ের সবচেয়ে তিক্ততাময় স্মৃতিগুলোর কথা বলবেন কি?

গল্পঃ চশমা পড়া মেয়েটি এবং ……

বাসের জন্য অনেকক্ষণ অপেক্ষা করছিলাম। কিন্তু এই অবরোধ এ বাস কোথায় পাব? এই রাজনৈতিক অস্থিরতায় আম জনতার যেমন পেটে লাত্থি, ঠিক তেমনই আমার পায়ে কুড়াল। জায়গাটা খুবই নির্জন। আশেপাশে বাড়িঘর তো দূরের কথা সামান্য চায়ের দোকানটাও নাই। তাহলে ত একটা সিগারেটের উপর আক্রোশ টা নিভাতে পারতাম। এই এক যাত্রী ছাউনি আর সামনে একটা পিচঢালা রাস্তা। ব্যস। আর কিছু নাই। চারপাশ প্রায় মরুভূমি। কিছুক্ষণ পর লক্ষ্য করলাম একটা মেয়ে এদিকেই আসছে। আমিও মনে মনে খুশি হলাম। যাক বাবা, কাওকে তো পেলাম। আর এদিকে দাড়িয়ে থাকতে থাকতে আমার পা ব্যথা করা শুরু করেছে। ভাবলাম একটু বসা যাক। কিন্তু মেয়েটা এসেই ২ টা সিটের ১ টাতে বসে পড়লো।

ঢাকা আর্ন্তজাতিক বাণিজ্য মেলায় আজ যা দেখলাম...

 

কর্মযোগে আজ ঢাকা আর্ন্তজাতিক বাণিজ্য মেলায় বেশ কিছুটা সময় কাটাতে হয়েছে, হয়েছে মিশ্র অভিজ্ঞতা।

একুশে বইমেলার কাব্যগ্রন্থ “দহন কালের কাব্য “

একুশে বইমেলার কাব্যগ্রন্থ “দহন কালের কাব্য ”
–এম,এ মান্নান (রিপন)

গল্পঃ অপু আর অপুর হৈম

--- তো পোলাপান, আমরা ক্যালকুলাসের "লা হসপিটাল রুলস"টা কি বুঝলাম?
দীর্ঘ ২ ঘন্টা ক্লাস নেওয়ার পর সুব্রত দা স্টুডেন্টদের দিকে একটু স্বস্তিতে তাকালেন।
--- অপু, তোর মনোযোগ কই? বাইরে কি?
--- কিছু না দাদা, এমনিতেই তাকিয়ে ছিলাম।
বোকার মতো একটা হাসি দিল অপু।
--- বুঝলি? দিন দুপুরে পরী নামে না। রাতে ট্রাই করিস।
সাথে সাথেই ক্লাসে একটা হাসির রোল বয়ে গেল। হাসিটা বোধহয় একটু বেশিই হল। কারণ, অপু ছিল গ্রুপ এডমিন। একটু চেনা মুখই বটে।

কলাগাছের মতো কাটা পড়ে যাচ্ছি প্রতিদিন

কলাগাছ থেকে কলাগাছ হয়। মানুষ থেকে মানুষ। মানুষ কলাগাছ কাটে কলাগাছের মতো। মানুষ কলা খায়। কলা বড্ড প্রিয় ফল মানুষের। কিন্তু কলাগাছে মানুষ খায় না। মানুষ মানুষও কাটে কলাগাছের মতো। প্রতিদিন কাটে ঘরে অফিসে রাস্তায় বাসে টিস্টলে স্টিমারে। কেটে দ্বি-খন্ডিত ত্রি চতুর পঞ্চ এমনকি খন্ড-বিখন্ড করে। তবু মানুষ যায় মানুষেরই কাছে। বাঁচতে এবং বাঁচাতে। কলাগাছের কাছে যায় না। কলাগাছও যায় না কলাগাছের কাছে। যেতে পারে না। মানুষ যায়। যেতে পারে। যেতে হয়। অথচ প্রজন্ম রেখে যাবার আনন্দ-বেদনা কম পায় না কলাগাছ মানুষের চাইতে।
 

মুজিবের শাসন: একজন লেখকের অনুভব – আহমদ ছফা

নির্ভীক ছফা, নির্দ্বিধায় প্রকাশ করতে পারতেন কঠিন সত্য। আহমদ ছফার এই লেখাটা সেরকম একটি সত্যভাষন। একটি দলিল। এই ভূখন্ডে হাজার বছরের ইতিহাসে শ্রেষ্ঠ ঘটনা, মাথা তুলে দাঁড়ানো মুক্তির চেতনা, স্বাধীনতার চেতনাকে কি করে ক্রমশ হত্যা করা হয়েছিল তারই একটি ছোট্ট দলিল- 

"প্রেম একবার এসেছিল নীরবে...

“একটি বেদনা-ভরা প্রেমের কাব্য”
–অধ্যাপক কৃপাল নারায়ণ চৌধুরী

২০১৩: মুখোশ উন্মোচনের বছর

একাত্তরের মানবতাবিরোধী অপরাধের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় মীরপুরের ‘কসাই’ খ্যাত কাদের মোল্লার ফাঁসির আদেশ কার্যকর হয়েছে ১৩ সালের ১৩ ডিসেম্বর। এর আগে ৫ ফেব্রুয়ারি মহাজোট সরকার আঁতাত করে তাকে ফাঁসির বদলে যাবজ্জীবন কারাদ- প্রদান করেছে-এই অভিযোগে এ দিন বিকেলেই শাহবাগ চত্বরে অনলাইন এক্টিভিস্টদের নেতৃত্বে প্রজন্মের জাগরণ ঘটে। ৮ ফেব্রুয়ারি ‘গণজাগরণ মঞ্চ’ নামে জাগরণের ইতিহাসে রচিত হয় মহা অধ্যায়; শাহবাগ চত্বরের নাম হয় প্রজন্ম চত্বর।

ডেমোক্রেসিঃ হাসিনা-খালেদা সংস্করণ

২৪ এপ্রিলের আগেভাগে দেশ যে পথে এগোচ্ছিল এখনো এগোচ্ছে সেই পথ ধরেই। ক্ষমতায় থাকা এবং যাওয়া নিয়ে শাসক গোষ্ঠীর দুই জোটের কামড়া-কামড়িতে রাষ্ট্রব্যবস্থা ভেঙে পড়ার অবস্থায় পৌঁছেছে বটে কিন্তু তার সাথে সহস্রাধিক শ্রমিকের লাশের কোনো সম্পর্ক নেই। এই বিশাল সংখ্যক লাশ রাষ্ট্রের মনে কোনো অভিঘাত সৃষ্টি করতে পারে নি। রানা প্লাজার ভবন ধসে মৃত্যুর পর শ্রমিক এলাকায় যে ক্ষোভের আগুন জ্বলে উঠেছিল ‘গণতন্ত্র’ আর ‘ভোটাধিকার’-এর নামে আপাতত তাকে ধামাচাপা দেয়া গেছে। জনগণের নজর ঘুরিয়ে দেয়া সম্ভব হয়েছে শ্রমিক গণহত্যার নির্মম চিত্র থেকে।

একটা ভালোলাগা কবিতা

 পাতা ভেসে

ঘুম


তোমাকে আজ ঘুমাতে দেব না
সারা রাত জেগে বসে থাক আমার পাশে
কিংবা দূরে, তবুও জেগে থাক।

তোমাকে আজ ঘুমাতে দেব না।

কিংবা ঘুমিয়ে গেলে, তোমাকে ডেকে তুলে দেব
ডেকে বলবো, বসে থাক আজ সারা রাত; ঘুমিও না
তুমি ঘুম চোখে আবার ঘুমিয়ে পরলে, তবুও ডাকবো

তুমি আজ আর ঘুমিয়ো না, এখনি জেগে উঠো ।

 


আমিও আজ সারা রাত ঘুমাবো না
আমি জেগে থাকবো
না তোমার জন্য না
আমার জন্য জেগে থাকবো
না কবিতা লিখবো না,
নিজেকে বুঝবো।

তুমি এখনো ঘুমিয়ে থেকো না।
জেগে উঠো।

 


 

Pages